এস.এস.সি.বাংলা প্রথম পত্র অধ্যায় – ১৬ পদ্য – প্রাণ এর সকল তথ্য ও MCQ প্রশ্নোত্তর PDF ডাউনলোড করুন

নবম-দশম শ্রেণির প্রাণ অধ্যায়ের  সকল তথ্য ও MCQ প্রশ্নোত্তর পিডিএফ Download 

SSC Bangla 1st Paper MCQ Question With Answer

এখানের সবগুলো প্রশ্ন ও উত্তর পিডিএফ আকারে নিচে দেওয়া লিংক থেকে ডাউনলোড করতে পারবেন।

লেখক পরিচিতি

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ২৫শে বৈশাখ ১২৬৮ সনে (৭ই মে ১৮৬১ খ্রিষ্টাব্দ) কলকাতার জোড়াসাঁকোর ঠাকুর পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা মহর্ষি দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুর এবং পিতামহ প্রিন্স দ্বারকানাথ ঠাকুর। বাল্যকালে রবীন্দ্রনাথকে ওরিয়েন্টাল সেমিনারি, নর্মাল স্কুল, বেঙ্গল একাডেমী প্রভৃতি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের লেখাপড়ার জন্য পাঠানো হলেও তিনি বেশিদিন স্কুলের শাসনে থাকতে পারেননি। এমনকি সতের বছর বয়সে রবীন্দ্রনাথকে ব্যারিস্টারি পড়ার জন্য ইংল্যান্ডে পাঠানো হলেও দেড় বছর পরে পড়াশোনা অসমাপ্ত রেখে তিনি দেশে ফিরে আসেন। বিদ্যালয়ের আনুষ্ঠানিক শিক্ষা তিনি লাভ করেননি, কিন্তু সাহিত্যের বিচিত্র ক্ষেত্রে তাঁর পদচারণা এক বিস্ময়ের বস্তু। তিনি ছিলেন প্রকৃত অর্থেই অসামান্য প্রতিভাধর। বাল্যেই তাঁর কবিপ্রতিভার উন্মেষ ঘটে। মাত্র পনের বছর বয়সে তাঁর বনফুল কাব্যগ্রন্থ প্রকাশিত হয়। ১৯১৩ সালে রবীন্দ্রনাথ ‘গীতাঞ্জলি’ কাব্যের জন্য এশীয়দের মধ্যে প্রথম সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার লাভ করেন। বস্তুত তাঁর একক সাধনায় বাংলা ভাষা ও সাহিত্য সকল শাখায় দ্রুত উন্নতি লাভ করে এবং বিশ্বদরবারে গৌরবের আসনে প্রতিষ্ঠিত হয়। তিনি একাধারে সাহিত্যিক, দার্শনিক, শিক্ষাবিদ, সুরকার, নাট্য প্রযোজক ও অভিনেতা। কাব্য, ছোটগল্প, উপন্যাস, নাটক, প্রবন্ধ, গান ইত্যাদি সাহিত্যের সকল শাখাই তাঁর অবদানে সমৃদ্ধ। তাঁর অজস্র রচনার মধ্যে মানসী, সোনার তরী, চিত্রা, কল্পনা, ক্ষণিকা, বলাকা, পুনশ্চ, চোখের বালি, গোরা, ঘরে বাইরে, যোগাযোগ, শেষের কবিতা, বিসর্জন, ডাকঘর, রক্তকরবী, গল্পগুচ্ছ, বিচিত্র প্রবন্ধ ইত্যাদি বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। ২২শে শ্রাবণ ১৩৪৮ সনে (৭ই আগস্ট ১৯৪১ খ্রিষ্টাব্দ) কলকাতায় বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ২৫শে বৈশাখ ১২৬৮ সনে (৭ই মে ১৮৬১ খ্রিষ্টাব্দ) কলকাতার জোড়াসাঁকোর ঠাকুর পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা মহর্ষি দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুর এবং পিতামহ প্রিন্স দ্বারকানাথ ঠাকুর। বাল্যকালে রবীন্দ্রনাথকে ওরিয়েন্টাল সেমিনারি, নর্মাল স্কুল, বেঙ্গল একাডেমী প্রভৃতি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের লেখাপড়ার জন্য পাঠানো হলেও তিনি বেশিদিন স্কুলের শাসনে থাকতে পারেননি। এমনকি সতের বছর বয়সে রবীন্দ্রনাথকে ব্যারিস্টারি পড়ার জন্য ইংল্যান্ডে পাঠানো হলেও দেড় বছর পরে পড়াশোনা অসমাপ্ত রেখে তিনি দেশে ফিরে আসেন। বিদ্যালয়ের আনুষ্ঠানিক শিক্ষা তিনি লাভ করেননি, কিন্তু সাহিত্যের বিচিত্র ক্ষেত্রে তাঁর পদচারণা এক বিস্ময়ের বস্তু। তিনি ছিলেন প্রকৃত অর্থেই অসামান্য প্রতিভাধর। বাল্যেই তাঁর কবিপ্রতিভার উন্মেষ ঘটে। মাত্র পনের বছর বয়সে তাঁর বনফুল কাব্যগ্রন্থ প্রকাশিত হয়। ১৯১৩ সালে রবীন্দ্রনাথ ‘গীতাঞ্জলি’ কাব্যের জন্য এশীয়দের মধ্যে প্রথম সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার লাভ করেন। বস্তুত তাঁর একক সাধনায় বাংলা ভাষা ও সাহিত্য সকল শাখায় দ্রুত উন্নতি লাভ করে এবং বিশ্বদরবারে গৌরবের আসনে প্রতিষ্ঠিত হয়। তিনি একাধারে সাহিত্যিক, দার্শনিক, শিক্ষাবিদ, সুরকার, নাট্য প্রযোজক ও অভিনেতা। কাব্য, ছোটগল্প, উপন্যাস, নাটক, প্রবন্ধ, গান ইত্যাদি সাহিত্যের সকল শাখাই তাঁর অবদানে সমৃদ্ধ। তাঁর অজস্র রচনার মধ্যে মানসী, সোনার তরী, চিত্রা, কল্পনা, ক্ষণিকা, বলাকা, পুনশ্চ, চোখের বালি, গোরা, ঘরে বাইরে, যোগাযোগ, শেষের কবিতা, বিসর্জন, ডাকঘর, রক্তকরবী, গল্পগুচ্ছ, বিচিত্র প্রবন্ধ ইত্যাদি বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। ২২শে শ্রাবণ ১৩৪৮ সনে (৭ই আগস্ট ১৯৪১ খ্রিষ্টাব্দ) কলকাতায় বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

মরিতে চাহি না আমি সুন্দর ভুবনে

মরিতে চাহি না আমি সুন্দর ভুবনে

মানবের মাঝে আমি বাঁচিবারে চাই।

এই সূর্যকরে এই পুষ্পিত কাননে

জীবন্ত হৃদয় মাঝে যদি স্থান পাই!   

আরো পড়ুন:  এস.এস.সি.বাংলা প্রথম পত্র অধ্যায় - ২০ সেইদিন এই মাঠ পদ্য - এর সকল তথ্য ও MCQ প্রশ্নোত্তর PDF ডাউনলোড করুন

সহজভাব

এই সুন্দর পৃথিবীতে কবি মরতে চান না

তিনি মানুষের মাঝে বেঁচে থাকতে চান

এই সূর্যের আলোতে, এই ফুলের বাগানে

মানুষের হৃদয়ের মাঝে যদি স্থান পান।

ধরায় প্রাণের খেলা চিরতরঙ্গিত

ধরায় প্রাণের খেলা চিরতরঙ্গিত

বিরহ মিলন কত হাসি-অশ্রুময়-

মানবের সুখে-দুঃখে গাঁথিয়া সংগীত

যদি গো রচিতে পারি অমর-আলয়!       

সহজভাব

পৃথিবীতে জন্ম-মৃত্যুর খেলা গতিময়

তাতে বিরহ-মিলন কত হাসি কান্না রয়েছে

মানুষের সুখে-দুখে সংগীত বেঁধে

অমর সাহিত্য রচান করে অমর হতে চান।

তা যদি না পারি তবে বাঁচি যত কাল

তা যদি না পারি তবে বাঁচি যত কাল

তোমাদেরি মাঝখানে লভি যেন ঠাঁই

তোমরা তুলিবে বলে সকাল বিকাল

নব নব সংগীতের কুসুম ফুটাই।

হাসি মুখে নিয়ো ফুল, তার পরে হায়

ফেলে দিয়ো ফুল যদি সে ফুল শুকায়॥             

সহজভাব

এসব যদি কবি না পারেন তাহলে তিনি

যতদিন বাঁচবেন ততদিন মানুষের মাঝে যেন থাকতে পারেন

সবসময় মানুষের কাজে লাগেন

এমন সাহিত্য বা গান তিনি রচনা করতে চান

সেসব ফুল অর্থাৎ মঙ্গলময় সাহিত্য যেন মানুষ হাসিমুখে গ্রহণ করে

যদি তা কাজে না লাগে তাহলে কবি তা ফেলে দিতে বলেছেন।

সূর্য করে – সূর্যের আলোতে; চিরতরঙ্গিত – সর্বদা কল্ললিত, বহমান: লভি – লাভ করি;

সূর্য করে – সূর্যের আলোতে; চিরতরঙ্গিত – সর্বদা কল্ললিত, বহমান: লভি – লাভ করি; জীবন্ত হৃদয় মাঝে – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর তাঁর সমস্ত সৃষ্টিতে মানুষের মাঝে বেঁচে থাকার আকাঙ্ক্ষা প্রকাশ করেছেন। আলোচ্য অংশে তাঁর এই আকাঙ্ক্ষার ইঙ্গিত পাওয়া যায়; বিরহমিলন … অশ্রুময়- মানুষের জীবন কুসুমাস্তীর্ণ নয়। হাসি-কান্না, আনন্দ-বেদনা নিয়ে তার জীবন। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর মানব জীবনের এই বৈচিত্র্যের মধ্যে স্থান করে নিতে চেয়েছেন। আর তাঁর সৃষ্টির মধ্যে ফলিয়ে তুলতে চেয়েছেন যাপিত জীবনের সুখ-দুঃখ, হাসি-কান্নার বিপুল এক আখ্যান; অমর আলয় – অমর সৃষ্টি অর্থে; নব নব সঙ্গীতের কুসুম ফুটাই – রবীন্দ্রনাথের সৃষ্টির জগৎ বিপুল; মানুষের জীবনের বিচিত্র অনুভব-অনুভূতি, ভাব-ভাবনা ও কর্মের জগৎকে তিনি তাঁর সৃষ্টির মধ্যে প্রাণময় করে তুলতে চেয়েছেন। তাঁর সেই সৃষ্টির মধ্য থেকে রূপ-রস-গন্ধ যেন মানুষ অনুভব করতে পারে তার জন্য তিনি প্রতিনিয়ত ফুটিয়ে তুলছেন সৃষ্টির কুসুম।

‘প্রাণ’ কবিতাটি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘কড়ি ও কোমল’ কাব্যগ্রন্থ থেকে সংকলিত হয়েছে।

‘প্রাণ’ কবিতাটি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘কড়ি ও কোমল’ কাব্যগ্রন্থ থেকে সংকলিত হয়েছে। কবির অমর হওয়ার বাসনা এই কবিতায় প্রকাশ পেয়েছে।

এই জগৎ সুন্দর ও আকর্ষণীয়। মানুষের হাসি-কান্না, মান-অভিমান, আবেগ-ভালোবাসায় পৃথিবী পরিপূর্ণ। জগতের মায়া ত্যাগ করে অন্য কিছুর আহ্বানে প্রলুব্ধ হয়ে কবি তাই মৃত্যুবরণ করতে চান না। তিনি অভিলাষ ব্যক্ত করেছেন, মানুষের মনজয়ী রচনা সৃজনের মাধ্যমে সবার কাছে আদৃত হওয়ার। কবি মনে করেন, পৃথিবীর নর-নারীর সুখ-দুঃখ-বিরহ যদি ঠিকভাবে তাঁর সৃষ্টিতে ঠাঁই পায় তাহলে তিনি অমর হতে পারবেন। তানা হলে তাঁর রচনা শুকনো ফুলের মতোই সবার কাছে অনাদৃত হয়ে পড়বে। সৎ ও শুভকর্ম করে জগতে মানুষের মধ্যে দীর্ঘ দিন বেঁচে থাকার জন্য দৃঢ় সংকল্প প্রয়োজন। যেমনটি করেছিলেন বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।

লেখক পরিচিতি

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ২৫শে বৈশাখ ১২৬৮ সনে (৭ই মে ১৮৬১ খ্রিষ্টাব্দ) কলকাতার জোড়াসাঁকোর ঠাকুর পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা মহর্ষি দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুর এবং পিতামহ প্রিন্স দ্বারকানাথ ঠাকুর। বাল্যকালে রবীন্দ্রনাথকে ওরিয়েন্টাল সেমিনারি, নর্মাল স্কুল, বেঙ্গল একাডেমী প্রভৃতি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের লেখাপড়ার জন্য পাঠানো হলেও তিনি বেশিদিন স্কুলের শাসনে থাকতে পারেননি। এমনকি সতের বছর বয়সে রবীন্দ্রনাথকে ব্যারিস্টারি পড়ার জন্য ইংল্যান্ডে পাঠানো হলেও দেড় বছর পরে পড়াশোনা অসমাপ্ত রেখে তিনি দেশে ফিরে আসেন। বিদ্যালয়ের আনুষ্ঠানিক শিক্ষা তিনি লাভ করেননি, কিন্তু সাহিত্যের বিচিত্র ক্ষেত্রে তাঁর পদচারণা এক বিস্ময়ের বস্তু। তিনি ছিলেন প্রকৃত অর্থেই অসামান্য প্রতিভাধর। বাল্যেই তাঁর কবিপ্রতিভার উন্মেষ ঘটে। মাত্র পনের বছর বয়সে তাঁর বনফুল কাব্যগ্রন্থ প্রকাশিত হয়। ১৯১৩ সালে রবীন্দ্রনাথ ‘গীতাঞ্জলি’ কাব্যের জন্য এশীয়দের মধ্যে প্রম সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার লাভ করেন। বস্তুত তাঁর একক সাধনায় বাংলা ভাষা ও সাহিত্য সকল শাখায় দ্রুত উন্নতি লাভ করে এবং বিশ্বদরবারে গৌরবের আসনে প্রতিষ্ঠিত হয়। তিনি একাধারে সাহিত্যিক, দার্শনিক, শিক্ষাবিদ, সুরকার, নাট্য প্রযোজক ও অভিনেতা। কাব্য, ছোটগল্প, উপন্যাস, নাটক, প্রবন্ধ, গান ইত্যাদি সাহিত্যের সকল শাখাই তাঁর অবদানে সমৃদ্ধ। তাঁর অজস্র রচনার মধ্যে মানসী, সোনার তরী, চিত্রা, কল্পনা, ক্ষণিকা, বলাকা, পুনশ্চ, চোখের বালি, গোরা, ঘরে বাইরে, যোগাযোগ, শেষের কবিতা, বিসর্জন, ডাকঘর, রক্তকরবী, গল্পগুচ্ছ, বিচিত্র প্রবন্ধ ইত্যাদি বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। ২২শে শ্রাবণ ১৩৪৮ সনে (৭ই আগস্ট ১৯৪১ খ্রিষ্টাব্দ) কলকাতায় বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

আরো পড়ুন:  এস.এস.সি বাংলা ১ম পত্র অধ্যায় - ২: গদ্য - দেনাপাওনা এর সকল তথ্য ও MCQ প্রশ্নোত্তর PDF ডাউনলোড করুন

‘প্রাণ’ অধ্যায়ের সকল বহুনির্বাচনী সাজেশন

১. ‘প্রাণ’ কবিতার চরণ সংখ্যা কত?
 ক) ১২
 খ) ১৪
 গ) ১৬
 ঘ) ১৮
 সঠিক উত্তর: (খ)
২. ‘পৃথিবী আমারে চায় – রেখো না বেঁধে আমায়’ – এর সাথে সাদৃশ্য রয়েছে কোন চরণের?
 ক) মরিতে চাহি না আমি সুন্দর ভুবনে
 খ) তোমাদের মাঝখানে লভি যেন ঠাঁই
 গ) নব নব সংগীতের কুসুম ফুটাই
 ঘ) ফেলে দিয়ো ফুল, যদি সে ফুল শুকায়
 সঠিক উত্তর: (খ)

 ৩. ‘সংগীত’ শব্দটির সঠিক গঠন হচ্ছে –
 ক) সং + গীত = সংগীত
 খ) সম্ + গীত = সংগীত
 গ) সৎ + গীত = সংগীত
 ঘ) সাৎ + গীত = সংগীত
 সঠিক উত্তর: (খ)

 ৪. ‘মরিতে চাহি না আমি সুন্দর ভুবনে’ – উক্তিটিতে প্রকাশ পেয়েছে –
i. কর্মস্পৃহা
ii. মর্ত্যপ্রীতি
iii. সৌন্দর্যপ্রীতি
নিচের কোনটি সঠিক?
 ক) i ও ii
 খ) ii ও iii
 গ) i ও iii
 ঘ) i, ii ও iii
 সঠিক উত্তর: (খ)
৫. ‘ডাকঘর’ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর রচিত কোন ধরনের রচনা?
 ক) নাটক
 খ) উপন্যাস
 গ) কাব্যগ্রন্থ
 ঘ) আত্মজীবনী
 সঠিক উত্তর: (ক)

 ৬. ‘প্রাণ’ কবিতায় ‘পুষ্পিত কানন’ বলতে কবি বুঝিয়েছেন –
 ক) সুন্দর বাগানকে
 খ) মানুষের মনকে
 গ) সমগ্র পৃথিবীকে
 ঘ) বনাঞ্চলকে
 সঠিক উত্তর: (গ)

 ৭. ‘মরণরে তুঁহু মম শ্যাম সমান’ – এর বিপরীত ভাব ফুটে উঠেছে যে কবিতায় –
 ক) বোশেখ
 খ) প্রাণ
 গ) ছায়াবাজি
 ঘ) মানুষ
 সঠিক উত্তর: (খ)

 ৮. মানবের সুখ দুঃখ নিয়ে কবি রচনা করতে চান –
 ক) কবিতা
 খ) সংগীত
 গ) উপন্যাস
 ঘ) নাটক
 সঠিক উত্তর: (খ)

 ৯. ‘কুসুম’ শব্দের অর্থ কী?
 ক) ফল
 খ) লতা
 গ) সূর্য
 ঘ) ফুল
 সঠিক উত্তর: (ঘ)
 ১০. ‘প্রাণ’ কবিতায় কবির প্রত্যাশা হলো –
 ক) মানুষকে ভালোবাসা
 খ) মানুষকে কাছে টানা
 গ) মানব হৃদয়ে বেঁচে থাকা
 ঘ) প্রকৃতির সাথে থাকা
 সঠিক উত্তর: (গ)

 ১১. রবীন্দ্রনাথের কবি প্রতিভার উন্মেষ ঘটে কখন?
 ক) শৈশবে
 খ) বাল্যকালে
 গ) বার্ধক্যে
 ঘ) যৌবনে
 সঠিক উত্তর: (খ)
১২. নব নব সংগীতের কুসুম আমরা কখন তুলব?
 ক) সন্ধ্যা রাতে
 খ) সকালে বিকালে

গ) ভর দুপুরে
 ঘ) ভোর বেলাতে
 সঠিক উত্তর: (খ)

 ১৩. বিরহ মিলন কত হাসি –
 ক) অশ্রুময়
 খ) কান্নাময়
 গ) বেদনাময়
 ঘ) বিষাদময়
 সঠিক উত্তর: (ক)

আরো পড়ুন:  নবম ও দশম শ্রেণির ভূগোল ও পরিবেশ অধ্যায় - ৪: পৃথিবীর বাহ্যিক ও অভ্যন্তরীণ গঠন এর MCQ প্রশ্ন ও উত্তর পিডিএফ ডাউনলোড

 ১৪. কবি সুন্দর ভুবনে কী চান না?
 ক) মরতে
 খ) বাঁচতে
 গ) অমর হতে
 ঘ) সৃষ্টি করতে
 সঠিক উত্তর: (ক)

 ১৫. রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের অনন্য অবদান –
 ক) বাংলা সাহিত্যকে বিশ্বসভায় পরিচিত করানো
 খ) বিদেশি সাহিত্যের অনুবাদ চর্চা করা
 গ) সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার অর্জন করা
 ঘ) বাংলা কবিতায় নতুন ধারা সৃষ্টি করা
 সঠিক উত্তর: (ক)

 ১৬. ‘হাসি মুখে নিয়ো ফুল।’ এখানে ‘ফুল’ শব্দটি দ্বারা বোঝানো হয়েছে –
 ক) সংগীত
 খ) কবিতা
 গ) ভালোবাসা
 ঘ) বাগানের পুষ্প
 সঠিক উত্তর: (ক)
১৭. ‘প্রাণ’ কবিতায় কবি স্থান পেতে চান –
i. সূর্যকরে
ii. পুষ্পিত কাননে
iii. জীবন্ত হৃদয়ে
নিচের কোনটি সঠিক?

ক) i ও ii
 খ) ii ও iii
 গ) i ও iii
 ঘ) i, ii ও iii
সঠিক উত্তর: (ঘ)

 ১৮. সংগীতকে বোঝাতে কবি কিসের আশ্রয় নিয়েছেন?
 ক) রূপকের
 খ) অলংকারের
 গ) উৎপ্রেক্ষার
 ঘ) অনুপ্রাসের
 সঠিক উত্তর: (ক)

 ১৯. নিচের কোন শব্দটি ধরা শব্দের সমার্থকরূপে নয়?
 ক) পৃথিবী
 খ) ধরিত্রী
 গ) মেদিনী
 ঘ) অন্তরীক্ষ
 সঠিক উত্তর: (ঘ)

 ২০. রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কোন প্রতিষ্ঠানে পড়ালেখার জন্য ভর্তি হন নি?
 ক) ওরিয়েন্টাল সেমিনারি
 খ) নর্মাল স্কুল
 গ) হেয়ার স্কুল
 ঘ) বেঙ্গল একাডেমি
 সঠিক উত্তর: (গ)

 

 ২১. রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘প্রাণ’ কবিতার মূলভাবের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত পঙক্তি হিসেবে কোনটি সমর্থনযোগ্য?
 ক) মানুষ বাঁচে তার কর্মের মাধ্যমে
 খ) জীবন বড়ই সুন্দর
 গ) আশাই মানুষকে বাঁচিয়ে রাখে
 ঘ) মৃত্যুকে মানুষ সহজে মেনে নিতে চায় না
 সঠিক উত্তর: (ক)

 ২২. রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের পনোরো বছর বয়সে প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থ কোনটি?
 ক) চিত্রা
 খ) মানসী
 গ) গীতাঞ্জলি
 ঘ) বনফুল
 সঠিক উত্তর: (ঘ)

 ২৩. ‘চাহি’ শব্দটির চলিত রূপ কোনটি?
 ক) চাওয়া
 খ) চাহিয়া
 গ) চাই
 ঘ) চাও
 সঠিক উত্তর: (গ)

 ২৪. ফুল শুকিয়ে গেলে ‘প্রাণ’ কবিতায় কবি কী করতে বলেছেন?
 ক) ফেলে দিতে
 খ) ভিজিয়ে রাখতে
 গ) অবহেলা করতে
 ঘ) যত্নে রেখে দিতে
 সঠিক উত্তর: (ক)
২৫. ‘সূর্য করে’ শব্দের অর্থ কী?
 ক) সূর্যের আলোতে
 খ) সূর্যের উত্তাপে
 গ) সূর্যের আকার
 ঘ) সূর্য বহ্নিতে
 সঠিক উত্তর: (ক)
 ২৬. ‘প্রাণ’ কবিতায় উল্লিখিত ধরায় কিসের খেলা চির তরঙ্গিত?
 ক) প্রাণের
 খ) মানুষের
 গ) প্রকৃতির
 ঘ) সৃষ্টির
 সঠিক উত্তর: (ক)
 ২৭. রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কোথায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন?
 ক) ঢাকায়
 খ) কলকাতায়
 গ) মাদ্রাজে
 ঘ) লন্ডনে
 সঠিক উত্তর: (খ)

 ২৮. কবি সুন্দর ভুবন ছেড়ে মরতে চায় না কেন?
 ক) ধন সম্পত্তি পাওয়ার লোভে
 খ) যশ-খ্যাতি পাওয়ার জন্য
 গ) মানুষ ও প্রকৃতিকে ভালোবাসে বলে
 ঘ) সৃজনশীল কর্ম রচনা করবে বলে
 সঠিক উত্তর: (গ)

 ২৯. ‘প্রাণ’ কবিতায় কবি নিজের সৃষ্টিকর্মকে কীসের সাথে তুলনা করেছেন?
 ক) পৃথিবীর
 খ) মানুষের
 গ) ফুলের
 ঘ) প্রকৃতির
 সঠিক উত্তর: (গ)

 ৩০. রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর মৃত্যুবরণ করেন –
 ক) ২৫ বৈশাখ
 খ) ১১ জ্যৈষ্ঠ
 গ) ২২ শ্রাবণ
 ঘ) ২০ ফাল্গুন
 সঠিক উত্তর: (গ)

এছাড়া ও এই অধ্যায়ের আরো অনেকগুলো MCQ সাজেশন পেতে নিচের পিডিএফ ফাইল টি ডাউনলোড করে নিন

PDF File Download From Here

📝 সাইজঃ- 289 KB

📝 পৃষ্ঠা সংখ্যাঃ 7

Download From Google Drive

Download

Direct Download 

Download