Bangla Math Magic Tips and Tricks|গণিতের মজার কিছু খেলার ট্রিকস

গণিত সবসময় মজার এবং আকর্ষণীয়। আমরা Math Tricks ব্যবহার করে সংখ্যা নিয়ে খেলতে পারি এবং আমাদের বন্ধু এবং সহকর্মীদের মুগ্ধ করতে পারি। এই কৌশল গুলো জানুন এবং আপনার বন্ধুদের সাথে খেলে তাদের অবাক করে দিতে পারেন। এই  Math Magic ট্র্যাক গুলো এত সহজ যে আপনি প্রদত্ত পদক্ষেপগুলি দিয়ে খুব সহজেই তা শিখতে পারেন। আপনার বন্ধুদের সাথে এই কৌশল শিখে ম্যাজিক দেখান এবং আপনার প্রতিভা প্রমাণ করুন।

📩 গণিতের ম্যাজিকঃ জাদুর খাম
আমরা এখন যে যে ম্যাজিকটি শিখব সেই ম্যাজিকটির নাম, ‘জাদুর খাম’। এই ম্যাজিকটিতে তুমি তোমার বন্ধু কে বলবে চারটি সংখ্যা লিখে এর যোগফল তোমাকে জানাতে। সে এটা জানানোর পরে তুমি আগে থেকে লিখে রাখা একটা মুখবন্ধ খাম তুলে দিবে তার হাতে। জাদুটি হল, তোমার বন্ধু  দেখবে তোমার আগেই লিখে রাখা মুখবন্ধ খামে সেই সংখ্যাটাই লেখা আছে যেটি সে তোমাকে বলেছিল।
ব্যাপারটা কিন্তু খুবই মজার হবে, তাই না? বন্ধু দের তাক লাগিয়ে দিতে এই জাদু শিখতে চাও?
তাহলে আসো শুরু করা যাক!

যা যা লাগবে
✋ এক টুকরো সাদা কাগজ
✋ কলম
✋  খাম
✋ আঠা

জাদুর রহস্যভেদ
এসো জেনে নেই কী করে এই মজার জাদুটি দেখাতে হবে।

জাদু শুরুর আগে আমাদের কিছু কাজ করতে হবে,

👉 গণিতের জাদু শুরু হবার আগেই তুমি একটি সাদা কাগজ নেবে। এই কাগজে বর্তমানে যে সাল চলছে, তার ২ গুণ লিখবে। যেমন, এখন যদি ২০১২ সাল হয়, তবে তুমি কাগজে লিখবে (২০১২X২)= ৪০২২। ২০২০ সাল হলে ৪০৪০, ২০১০ সাল হলে ৪০২০ ইত্যাদি।
👉 এবার কাগজটি ভাঁজ করে খামের মধ্যে ঢুকিয়ে দাও। খামের মুখ আঠা দিয়ে বন্ধ করে দাও।

জাদু দেখানোর সময় যা করতে হবে

👉 তোমার বন্ধু কে কাগজে তার জন্মসাল লিখতে বলো।
👉 এবার তাকে তার জীবনের একটি বিশেষ ঘটনার সালটি লিখতে বলো। যেমন, যেই সালে সে প্রথম স্কুলে ভর্তি হয়েছিলো, অথবা যেই সালে সে প্রথম চিড়িয়াখানায় গিয়েছিলো।
👉 এবার তোমার বন্ধু কে তার বয়স লিখতে বলো। (এ বছর তার বয়স কত হবে তা লিখবে।)
👉 সেই বিশেষ ঘটনার পর কত বছর পার হয়েছে সেই সংখ্যাটি এবার তাকে ঝটপট লিখে ফেলতে বলো।
👉 সবশেষে তাকে এই চারটি সংখ্যা যোগ করে যোগফলটি লিখতে বলো।
👉 এবার জাদুকরের জাদু দেখাবার পালা। চোখ বন্ধ করে মন্ত্র পড়ে তুমি খামটি তুলে নেবে। খাম খুলে ভেতরের কাগজটি সবাইকে দেখিয়ে দাও।

আরো পড়ুন:  মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট (এমআরপি) অনলাইনে আবেদন ফরম পূরণের নিয়মাবলী | BANGLADESH MACHINE READABLE PASSPORT ONLINE APPLICATION SYSTEM

উদাহরণ দিয়ে বিষয়টি আরও পরিষ্কার করে দিচ্ছি–
 
এখন ২০১৮ সাল। তুমি এই সংখ্যাকে ২ দিয়ে গুণ করে খামের ভিতরের কাগজটিতে ৪০৩৬ লিখবে।
ইরার জন্ম ২০০৪ সালে।
ওর বয়স এবার ১৪ হবে।
২০০৯ এ সে প্রথম স্কুলে যায়।
২০১8 সালে তার প্রথম স্কুলে যাবার দিনটির ৯ বছর পূর্ণ হবে।
২০০৪+১৪+২০০৯+৯ = ৪০৩৬

সতর্কতা
👉 সংখ্যা লেখার সময় ভুল করা যাবে না। যেমন, প্রথম স্কুলে যাবার দিনটি যদি ৬ বছর আগে হয়, এবং তোমার বন্ধু  যদি ৫ লিখে, তাহলে জাদুটি কাজ করবে না।
👉 প্রতিটা সংখ্যা অবশ্যই পূর্ণসংখ্যা হতে হবে। বর্তমান সালে যত বয়স হবে তাই লিখতে হবে।

ধরো, ইরার জন্ম ২০০৪ সালের ডিসেম্বর মাসে। এখন ফেব্রুয়ারী মাস। সে হিসেবে তার বর্তমান বয়স তেরো বছর দুই মাস। কিন্তু কাগজে ১৪ বছরই লিখতে হবে, কারণ ২০১৮ সালেই তার বয়স ১৪ হবে।
অথবা ইরার জন্ম ২০০৪ সালের ফেব্রুয়ারীতে। ডিসেম্বর মাসে এই ম্যাজিক দেখাতে গেলে তার বয়স ১৪ বছর ১০ মাস, কিন্তু লিখতে হবে ১৪ বছর। কারণ ২০১৮ তার ১৫ হবে না।

💢 [Magic Tips] তিনটি এক সংখ্যার অংকের ভাগফল বের করুন সহজেই

অংকের ছোট্ট ম্যাজিক এই অংকের ম্যাজিকটি ছোট্ট হলেও কম আশ্চর্যজনক নয়।
প্রথমে দর্শককে অনুরোধ করুন পাশাপাশি তিনটি একটি রকম অংক লিখতে (যেমন, ১১১, ২২২ প্রভৃতি)।
তারপর তাকে ঐ অংক তিনটির যোগফল দিয়ে ঐ তিন অংকের নির্বাচিত সংখ্যাকে ভাগ করতে বলুন ।
আবার আপনি বলুন “এই অংকের ম্যাজিকে আমি কিছুই শুনিনি বা দেখিনি।
আপনি ইচ্ছামত তিনটি একটি রকম সংখ্যা লিখে, সংখ্যা তিনটির যোগফল দিয়ে ভাগ কররেছেন।
তবুও আমি যাদুর সাহায্যে বলে দিতে পরি তার উত্তর।
( এবার আপনি এমন ভাব করুন যেন কোন জিনের থেকে উত্তরটি শুনে নিচ্ছেন ) ব্যাস্ বলে দিন ৩৭। আশ্চর্য্য“ রেজল্ট সটিক। কি ভাবে ????

আরো পড়ুন:  ত্রিকোনোমিতির কঠিন অংকগুলো সবচেয়ে সহজ উপায়ে করুন |ত্রিকোনোমিতির অংক করার শর্টকাট টেকনিক

আসলে সে একই রকম তিন অংশের যে সংখ্যাটি লিখুক না কেন উত্তর সর্বদা ৩৭ হবেই। যেমন, ৪৪৪ কে ১২ (৪ + ৪+৪) দ্বারা ভাগ করলে ৩৭ হয়।
এর উত্তরটা সব সময় এক হয়, তাই একই দর্শককে দুবার দেখান যায় না। তবে এর উত্তরটা অন্যভাবেও প্রকাশ করা যায়। একটা ছোট কাগজে লেবুর রস দিয়ে ৩৭ লিখে রাখলে শুকলে কিছুই বোঝা যায় না। উত্তর বলার আগে সবার সমানে পানিতে কাগজটা ভিজালেই ৩৭ ফুটে উঠবে।

💢 [Magic Tricks] গনিতের ম্যাজিক

আমি আপনাদের গনিতের একটা ম্যাজিক দেখাব। আপনে মনে মনে যে সংখ্যাই রাখেন না কেন আমি তা বলে দিতে পারব। বিশ্বাস না হলে নীচে দেখুন-
✋ মনে মনে একটা সংখ্যা ধরুন।
✋ সংখ্যা টিকে তার পরের সংখ্যার সঙ্গে যোগ করুন।
✋ এবার যোগফলের সাথে ১২৩ যোগ করে যোগফলকে ২ দ্বারা ভাগ করুন।
✋ এখন ভাগফল থেকে মূল সংখ্যাটি বিয়োগ করুন। এবার বিয়োগফলটা আমি বলি— বিয়োগফলটা ৬২। কি! অবাক হচ্ছেন? প্রক্রিয়া টা কিন্তু খুব সহজ।
এখন কিভাবে করলাম তার নিয়ম টা দেখাব–
মনে করেন আপনে ধরেছেন ৫৩,
পরের সংখ্যাটি ৫৪,
অতএব যোগ করলে যোগফল হয় ১০৭,
আমি দিলাম ১২৩,
আবার যোগ করলে হয় ২৩০,
২ দিয়া ভাগ দিলে হয় ১১৫, এবার মূল সংখাটা(৫৩) বাদ দিলে হয়
=১১৫-৫৩=৬২,
উত্তরঃ ৬২।
এবং মজার বিষয় উত্তর সবসময় ৬২ হবে, বিশ্বাস না হলে আবার ট্রাই করে দেখুন। (তবে ১২৩ সংখ্যাটি বার বার ব্যাবহার করলে সকলে ব্যাপার টা ধরে ফেলবে।

💢  [Bangla Math Magic Tips and Tricks] – Birthday Date Calculations

Trick : Birthday magic

✋ Step1: Add 18 to your birth month.
✋ Step2: Multiply by 25.
✋ Step3: Subtract 333.
✋ Step4: Multiply by 8.
✋ step5: Subtract 554.
✋ step6: Divide by 2.
✋ step7: Add your birth date.
✋ step8: Multiply by 5.
✋ step9: Add 692.
✋ step10: Multiply by 20.
✋ step11: Add only the last two digits of your birth year.
✋ step12: Subtract 32940 to get your birthday!

আরো পড়ুন:  All Exam Math Solution By IBA PDF Download

উদাহরণ:
যদি উত্তর 123199 হয় তবে 31 ডিসেম্বর, 1999 তারিখে আপনার জন্ম হয়। যদি উত্তরটি সঠিক না হয়, তাহলে আপনি আপনার জন্মদিন সম্পর্কে ভুলভাবে নির্দেশনা দিয়েছেন বা মিথ্যা বলেছিলেন।

💢  গণিত নিয়ে আরো তিনটি ম্যাজিক Tricks নিচে দেয়া হলো –

Magic Tricks  1 প্রথম ম্যাজিক
১ থেকে ১০০ এর মধ্যে যেকোনো একটি সংখ্যা কল্পনা কর।
এরপর সেই সংখ্যাটির সাথে ২ গুণ কর।
প্রাপ্ত গুণফলের সাথে ৫ গুণ কর।
নতুন গুণফল এর শেষে অবশ্যই ০ আছে । তাই না? এখন শূন্যটি মুছে ফেল। দেখ প্রথমে যে সংখ্যাটি তুমি কল্পনা করেছিলে সেটি পেয়ে গেছো।

উদাহরণ
মনে কর তুমি কল্পনা করেছ ২৫।
তাহলে ২৫ X ২ = ৫০
৫০ X ৫ = ২৫০
২৫০
২৫
এটি আসলে খুব সহজ একটি কৌশল। যেকোনো সংখ্যাকে ১০ দিয়ে গুণ করলে গুণফলের শেষে ০ থাকে। সেই ০ মুছে দিলে তা আবার পূর্বের সংখ্যাটি পাওয়া যায়। এখানেও তাই ঘটেছে। তুমি যে সংখ্যাটি কল্পনা করেছ সেটিকে ১০ দিয়ে গুণ করা হয়েছে। কিন্তু সেটি হয়েছে দুই ধাপে। একবার ২ দিয়ে আর একবার ৫ দিয়ে। ৫X২ = ১০ । এবার নিশ্চয়ই বুঝতে পেরেছে।
এরকম আরো অনেক ম্যাজিক আছে। চলো এমন কিছু ম্যাজিক শিখে ফেলি।

Magic Tricks 2 দ্বিতীয় ম্যাজিক
১ থেকে শুরু করে ১০ এর নিচে যে কোনো একটি সংখ্যা কল্পনা কর।
সংখ্যাটিকে ২ দিয়ে গুন কর।
এবার গুণফলের সাথে ৬ যোগ কর।
যোগফলকে অর্ধেক কর। মানে ২ দিয়ে ভাগ কর।
এবার ভাগফলের থেকে তোমার কল্পনা করা সংখ্যাটি বিয়োগ কর।
দেখ বিয়োগফল ৩।

এটাও শুধুই বুদ্ধির খেলা। যুক্তিকে কৌশল হিসেবে কাজে লাগিয়ে জাদুতে পরিণত করা হয়েছে।

Magic Tricks 3 তৃতীয় ম্যাজিক
যে কোনো একটি সংখ্যা কল্পনা কর।
সংখ্যাটিকে ৩ দ্বারা গুণ কর।
সংখ্যাটির সাথে ৬ যোগ কর।
এবার যোগফলকে ৩ দিয়ে ভাগ কর।
প্রাপ্ত ভাগফল থেকে তুমি যে সংখ্যাটি কল্পনা করেছিলে সেটি বিয়োগ কর।
দেখ বিয়োগফল ২।